ONIKET PRANTOR LYRICS BY ARTCELL

Oniket Prantor Lyrics by Artcell
অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স 
ONIKET PRANTOR LYRICS BY ARTCELL :
' Oniket Prantor ' is a Bangladeshi song, Sung & composed by the band ARTCELL.After the success of Onno Shomoy, Artcell spent four years carrying out experiments with their music without releasing an album. They did, however, release singles scattered in various albums by other bands or compilation albums. Their second studio album "Aniket Prantor (No man's land)" was released in April 2006. The album was one of the top sellers of the year. "Aniket Prantor (No man's land)", the album's namesake, is Artcell's longest song to date, at 16 minutes and 21 seconds.

SONG CREDITS
■ Title: Oniket Prantor
■ Singer: Artcell
■ Lyrics : Rumman Ahmed 
■ Music : Artcell
■ Label : G Series
■ Release Date :Aprill 2006

ONIKET PRANTOR FULL SONG


ONIKET PRANTOR FULL SONG LYRICS IN BANGLA

তবু এই দেয়ালের শরীরে
যত ছেঁড়া রঙ ধুয়ে যাওয়া মানুষ,
পেশাদার প্রতিহিংসা তোমার চেতনার
যত উদ্ভাসিত আলো রঙ।

আকাশের মতন অকস্মাৎ
নীল নীলে ডুবে থাকা তোমার প্রিয় কোনো মুখ
তার চোখের কাছাকাছি এসে
কেন পথ ভেঙে।
দু'টো মানচিত্র এঁকে,
দু'টো দেশের মাঝে,
বিঁধে আছে অনুভূতিগুলোর ব্যবচ্ছেদ।

তবু এইখানে আছে অবলীল হাওয়া
জানালা বদ্ধ ঘরে আসে যায়,
দেয়াল ধরে বেড়ে ওঠে মধ্যরাত
তোমার ছায়ায় জমে এসে ভয়।

আলোকে চিনে নেয়
আমার অবাধ্য সাহস,
ভেতরে এখন কি নেই
কাপুরুষ অন্ধকার একা?

তোমাকে ঘিরে পথগুলো সব সরে যায়,
রাত্রির এই একা ঘর ঝুলে আছে
শূন্যের কাঁটাতারে।

দু'টো মানচিত্র এঁকে,
দু'টো দেশের মাঝে,
মিশে আছে অনুভূতিগুলোর ব্যবচ্ছেদ।

তবু এই দু'টি কাঁটাতারে
শহরের মতো করে,
ভিড়ে ভরে গেছে ঘুম আমার।

অচেতন কখন বেওয়ারিশ
মাটির কাছে এসে,
সময় কে epitaph ভেবে
হাঁটু গেড়ে বসে।

তবু এখানে বাতাস আসে দুরত্বের উৎসাহে,
শরৎ জমে আছে ঠাণ্ডা ঘাসে।
তোমার চোখের মাঝে দূরের একা পথ,
এখানে ভাঙে না দু'টো দেশে।

মেঘের দূরপথ ভেঙে,
বুকের গভীর অন্ধকারে,
আলোর নির্বাসন স্মৃতির মতন।

অবিকল স্বপ্নঘর বাঁধা,
স্মৃতির অন্ধ নির্জন,
সময় থেমে থাকে অনাগত ,
যুদ্ধের বিপরীতে।

এখানে সরণির লেখা নেই নাম,
কোনো শহীদ স্মারকে,
তোমার জন্য জমা থাকে শুধু স্বপ্নঘর।

জানালায় ঝুলে থাকে না
শূন্যতার অবচেতন,
তোমার ঘরের অন্ধ আলোয়
অদেখা।

এখানের নির্জন অনিকেত প্রান্তর...।

তবুও তোমার ভাঙা স্মৃতি,
ছেঁড়া স্বপ্ন, দোমড়ানো খেলাঘর,
ছেঁড়া আকাশ, ভাঙা কাঁচে,
আলো আর অন্ধকার তোমার।

তোমার দেয়ালে কত লেখা,
মানুষের দেয়ালে দেয়াল,
বেড়ে ওঠে কাঁটাতার,
এখানে এ মহান...
মানচিত্রের ভাগাড়।

তোমার শূন্যঘরে ভরা স্মৃতি,
জড় পাথরে লেখা নাম,
শহীদ স্মরণী।

জানালার বাইরে
ভেসে গেছে
দূরের আকাশ।
বিঁধে আছি সময়ের কাঁটাতারে।

বিঁধে আছো ছেঁড়া
আকাশের মত তুমি।

তোমার স্বপ্নের দলা পাকানো,
বাসি কবিতা, নষ্ট গানে,
তোমার জানালার বাইরে শূন্য আকাশ,
তবু অনিকেত, এই প্রান্তরে...।

এখানে এখনও শরতের
প্রচুর বাতাসে, সবুজের ঘ্রাণে,
ভরে আছে অন্ধকার এ ঘর তোমার,
দেয়ালে এখন শুধু মৃত্যুর মৃত রেখাপাত।

তোমাকে কড়া নাড়ে
স্মৃতিরা, ভাঙা স্বপ্ন
ঘুমের মত নেশাময় কত,
কত শিশু, কত আলোর মশাল নিভে গেছে,
নিভে গেছে কত অচেনা ভয়।

তোমাকে এখন অপরিণত
এক অচেনা স্মৃতি মনে হয়,
তোমার জানালার বাইরে শূন্যে,
দূরের স্বপ্নঘর, ঝুলে আছি নির্জনতায়,
মৃত্যু কি অনিকেত প্রান্তর?
][ সমাপ্ত ][

   অনিকেত প্রান্তর গানের অর্থঃ
অনিকেত প্রান্তর’ শব্দটির অর্থ ‘No mans’ land’। রুম্মানের আহমেদ'র লেখা ‘অনিকেত প্রান্তর’ লিরিকটি মানুষের ‘অনিকেত প্রান্তর’ বা ‘No mans’ land’র চিন্তা-ভাবনা নিয়ে লেখা। দু’দেশের মাঝখানে এমন একটি মালিকানাবিহীন জায়গা- ‘No mans’ land’ থাকে, যেখানে চলে না কারও নিয়ম-শৃংখলা, রীতি-নীতি, বিধি-নিষেধ, তেমনি প্রত্যেক মানুষের মাঝেও একটি করে ‘No mans’ land’ থাকে। সেই ‘No mans’ land’ দাঁড়িয়ে, সেই স্বাধীনতার তাড়না থেকে এই গানটি লেখা। মানুষ স্বাধীন হলেও স্বাধীনভাবে তার সব স্বপ্নকেই জীবন দিতে পারে না। কিন্তু কেবল অনিকেত প্রান্তরে দাঁড়িয়েই সে তার স্বপ্নগুলোকেই স্বপ্নে হলেও জীবন দিতে পারে। বাস্তবে হয়তো সেগুলো ‘স্বপ্নের দলা পাকানো বাসি কবিতা, নষ্ট গান’ হয়েই ঝড়ে যায়।

কোন মন্তব্য নেই:

Please do not enter any spam link in the comment box

Blogger দ্বারা পরিচালিত.